পরিবেশ ভাবনা বিহীন পুর-নির্বাচন তাই সজাগ ‘সবুজ মঞ্চ’

ওয়েব ডেস্কঃ

আগামীদিনে রাজনীতির সবচেয়ে বড় বিষয় হতে চলেছে পরিবেশ। অথচ আসন্ন পুর নির্বাচনে পরিবেশ চিন্তা নেই। এই ইস্যুতে রাজ্যের সমস্ত রাজনৈতিক দলগুলিকে এক হাত নিয়ে নির্বাচন চলাকালীন কড়া নজরদারি রাখার ডাক দিল পরিবেশ সুরক্ষা সংগঠন “সবুজ মঞ্চ”। সোমবার রাজ্য নির্বাচন কমিশনকে একটি চিঠি দিয়ে পরিবেশ কর্মীদের ওই সংগঠন আর্জি জানিয়েছে যাতে নির্বাচন চলাকালীন বিপন্ন না হয় পরিবেশ।

মঙ্গলবার কলকাতা প্রেস ক্লাবে আয়োজিত একটি সাংবাদিক সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন সভাপতি ডঃ দুলাল বসু, সাধারণ সম্পাদক নব দত্ত,যুগ্ম সম্পাদক শশাঙ্ক দেব, সহ সভাপতি শাশ্বতী সেন, কোষাধক্ষ্য পবন মুখার্জি এবং সবুজ মঞ্চের সম্পাদক মন্ডলীর সদস্য ও সহযোগীরা।

পরিবেশ কর্মীরা বলেন রাজ্যের রাজনৈতিক দল বিজেপি, টিএমসি, কংগ্রেস বা সিপিআইএম কারও নির্বাচনী ইস্তেহারেই স্পস্ট পরিবেশ ভাবনা নেই। রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসের ১০ দফা দাবির মধ্যে টালিগঞ্জ, যাদবপুরে জল সমস্যার সমাধান কলকাতায় জমা জল বন্ধ করতে ২০০টি অতিরিক্ত পাম্প বসানোর কথা বলা হয়েছে। অথচ বেআইনি নির্মাণ, খাল দখল এবং নিকাশি খালগুলির পলি অপসারণের কোনও দিশা দেখাচ্ছে না ওই ইস্তেহার। অথচ এগুলো না করে ওই বিপুল পরিমাণ পাম্প বসালে জমা জলের সমস্যার স্থায়ী সমাধান হবে না। পাশাপাশি ৫০০টি এসি বাস স্টপের প্রস্তাব অপ্রয়োজনীয়, ও পরিবেশ বিরোধী। সবুজ মঞ্চের মতে এর ফলে বিপুল পরিমাণ শক্তির অপচয় ও দূষণ বাড়বে।

ভারতীয় জনতা পার্টি তাদের ইস্তেহারে ৬টি এস Sর কথা বলেছে। স্বাস্থ্য কলকাতা, স্বচ্ছ কলকাতা, শিক্ষিত কলকাতা, সুরক্ষিত কলকাতা, সাংস্কৃতিক কলকাতা ও সবার কলকাতা। সবুজ মঞ্চ বলছে সপ্তম ‘স’ সবুজ কলকাতার কোনও উল্লেখ নেই ওই ইস্তেহারে।

বামেদের ইস্তেহারে ২৪ ঘণ্টা পরিশ্রুত পানীয় জল পৌঁছে দেওয়া, গভীর নলকূপ ও হ্যান্ড টিউবওয়েল ধাপে ধাপে তুলে দেওয়া, পূর্ব কলকাতা জলাভূমি ও গ্রিন সিটি তৈরির কথা বললেও অধিকাংশ জরুরী বিষয়ই নেই।

তাই আসন্ন কলকাতা পৌরসভা নির্বাচন ২০২১ ও অন্যান্য জেলার ১১৮ টি পৌর নির্বাচনে সমস্ত রাজনৈতিক দলের কাছে সবুজ মঞ্চের পরিবেশ সংক্রান্ত ১৫ দফা দাবিগুলি তুলে ধরা হয় ।



১) কলকাতার সঠিক পরিবেশ কেন্দ্রীক নগর পরিকল্পনা, পরিবেশ রক্ষা ও পরিষেবার পরিকল্পনা করে নগর সম্প্রসারণ
২) সঠিক গুণমানের পানীয় জল ও তার গুণমানের তথ্য জনসমক্ষে তুলে ধরা
৩) ভূ গর্ভস্থ জলের উত্তলন নিষিদ্ধ করা ও বৃষ্টির জল সংরক্ষনে জোর দেওয়া;প্রয়োজনে ইনসেন্টিভ দেওয়া
৪) গাড়ী, নির্মাণ, কারখানা থেকে হওয়া বায়ু দূষণ কমানোর ব্যবস্থা গ্রহণ
৫) প্রতি ওয়ার্ড ভিত্তিক জলাশয়, পুকুরের পূর্ব ও বর্তমান তথ্য ও তার যথাযথ সংস্কার তথা সংরক্ষণের ব্যবস্থা গ্রহণ
৬) পূর্ব কলকাতা জলাভূমির সঠিক সংরক্ষণ ও রক্ষা সাথেই শহরের দূষিত জল সরাসরি বিদ্যধরি নদী তে ফেলা বন্ধ করা
৭) আদি গঙ্গা ও বিভিন্ন নিকাশি খালের সংস্কার ও দখল মুক্ত করে শহরের জমা জলের সমস্যার স্থায়ী প্রতিকার
৮) শহরের পর্যাপ্ত সবুজায়ন ,বাস্তুতরণের পুনরুদ্ধার ও জীব বৈচিত্র্য রক্ষা
৯) রবীন্দ্র সরোবর, সুভাষ সরোবর ও অন্যান্য পার্ক গুলোতে সবুজ ফিরিয়ে আনা ও অপ্রয়োজনীয় নির্মান বন্ধ করা সাথে দখলদার মুক্ত করা
১০) ২০১৬ সালের আবর্জনা ব্যবস্থাপনা আইন অনুযায়ী আবর্জনা recycling প্রক্রিয়াকরণ করা, চিকিৎসা জাত ও নির্মাণজাত আবর্জনার সঠিক ব্যবস্থাপনা গ্রহণ সাথে পুরসভার বিল্ডিং রুল এবং পরিবেশ আইন অনুযায়ী নির্মাণ সামগ্রী যেখানে সেখানে রাখা বন্ধ করতে হবে এবং ফাঁকা জায়গায় আবর্জনা জ্বালানো সম্পূর্ণ বন্ধ করতে হবে।
১১) প্লাস্টিক সামগ্রীর উৎপাদন ও ব্যবহার কমানো সাথে প্লাস্টিক আবর্জনার যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ
১২) জলবায়ু পরিবর্তনের কুফল থেকে শহর কে রক্ষার সামগ্রিক পরিকল্পনা গ্রহণ ও ছোট ছোট সৌর বিদ্যুতের উৎপাদন ও ব্যবহারে উৎসাহিত করা
১৩) শব্দ দানবের (বাজী, লাউড স্পিকার, ডিজে) সম্পূর্ণ বন্ধ তথা সাউন্ড লিমিটার সহ নিয়মমাফিক নির্দিষ্ট সময়ে মধ্যে বাজানোর ব্যবস্থা গ্রহণ
১৪) পরিবেশ বান্ধব নগরায়ণ ও পরিকল্পনা গ্রহণ
১৫) পরিবেশ বান্ধব ট্রামকে গণ পরিবহনে ফিরিয়ে আনা
এছাড়াও শহরের মতই জেলার বিভিন্ন পরিবেশ গত সমস্যাকে গুরুত্ব সহকারে বিচার করে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ.
এছাড়াও ‘সবুজ মঞ্চ’ সাধারণ ভোটার দের কাছে আবেদন করেছেন যাতে তাঁরা প্রতিটি রাজনৈতিক দলের কাছে পরিবেশ সংক্রান্ত জরুরী প্রশ্ন গুলো তুলে ধরে উত্তর চান ও প্রতিশ্রুতি দাবি করুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *