শচীনের জন্মদিনে জানুন লিটল মাস্টারের জীবনের অজানা কথা

ওয়েব ডেস্কঃ

৪৮ এ পা দিলেন মাস্টার ব্লাস্টার শচীন রমেশ তেণ্ডুলকর। ২৪ এপ্রিল সকাল থেকেই সামাজিক মাধ্যমে শচীন ভক্তরা লিটল মাস্টারের জন্মদিনের শুভেচ্ছা বার্তা পাঠাতে শুরু করেন। টুইটার ট্রেণ্ডিং এ সবার ওপরে হ্যাপি বার্থ ডে শচীন (#HappyBirthdaySachin) । কিছুদিন আগে কোভিড আক্রান্ত হয়েছিলেন তিনি। ২এপ্রিল হাসপাতালে ভর্তি হলেও ৮ এপ্রিল হাসপাতাল থেকে ছাড়া পান শচীন।

আমরা অনেকেই জানি মিস্টার পারফেকসানিস্ট আমির খান আর শচীন তেণ্ডুলকরের বন্ধুত্বের কথা। আর সেই বন্ধুত্বের সুবাদেই আমিরের প্রায় সব ছবিই রিলিজ হওয়ার আগে স্পেশাল স্ক্রীনিং এ ডাক পেতেন শচীন। আর তাই আগেভাগেই দেখে ফেলতেন আমির খানের ব্লক বাস্টার সব মুভিজ।

এবার চলুন জেনে নিই ক্রিকেট ছাড়ার পর শচীনের জীবনের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ ঘটনা। রাজ্যসভার সদস্য হবার পর শচীন রমেশ তেণ্ডুলকর সাংসদ আদর্শ গ্রাম যোজনার মাধ্যমে অন্ধ্রপ্রদেশের পুট্টম রাজুগারি কান্দ্রিগা গ্রামটি দত্তক নেন। ওই গ্রামে জল, বিদ্যুৎ, প্রতি ঘরে শৌচালয়, খেলার মাঠ, পাকা রাস্তা ও ফুটপাথ নির্মিত হয়। নির্মিত হয় একটি কমিউনিটি সেন্টারও। অন্ধ্রপ্রদেশের নেল্লোর জেলার পুট্টম রাজুগারি কান্দ্রিগা গ্রামে শচীনের এমপি ল্যাড থেকে ২ কোটি ৭৯ লক্ষ টাকা দিয়ে ঢেলে সাজিয়েছেন মাস্টার ব্লাস্টার। এছাড়াও মহারাষ্ট্রের ওসমানাবাদের ডোঞ্জা গ্রামটিকেও দত্তক নেন শচীন।

ক্রিকেট ছাড়লেও খেলার মাঠকে বিদায় জানান নি লিটল মাস্টার। নিয়মিত খোঁজ রাখেন টেনিস আর মোটর স্পোর্টসের। সম্প্রতি একটি মোটর স্পোর্টস ইভেণ্টের ব্র্যাণ্ড এম্বাসেডর হিসাবেও দেখা গেছে তাঁকে। পৃথিবীর সেরা গলফ কোর্সে গিয়ে মাঝে মাঝেই স্টিক হাতে গলফ কার্টে পাড়ি জমান লিটল মাস্টার।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *