করোনা কেড়ে নিল মহাত্মা গান্ধীর প্রপৌত্র সতীশ ধুপেলিয়াকে

ওয়েব ডেস্কঃ

গান্ধীজীর প্রপৌত্র সতীশ ধুপেলিয়া ডারবানে কোভিড আক্রান্ত হয়ে প্রয়াত। সদাহাস্যময়, পরোপকারী, সাম্যবাদী, পিছিয়ে পড়া মানুষজনকে নিয়ে অনবরত কাজ করে যাওয়া সতীশ তাঁর কর্ম জীবন শুরু করেন একজন শিক্ষক হিসাবে। শিক্ষণ প্রশিক্ষণ নিয়ে কর্মজীবন শুরু করেন ডারবানের গান্ধী দেশাই স্কুলে। পরবর্তী কালে তিনি ক্লেয়ারউড স্কুলেও শিক্ষকতা করেন। কিন্তু ফোটোগ্রাফি ছিল তাঁর নেশা। তাই আধুনিক যন্ত্রপাতি নিয়ে তিনি শুরু করেন ফোটোগ্রাফি ও ভিডিওগ্রাফি চর্চা। বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যমের সাথে কাজ করা ছাড়াও ডারবানের সবচেয়ে প্রশংসিত ওয়েডিং ফোটোগ্রাফারও ছিলেন তিনি।

মোহনদাস করমচাঁদ গান্ধীর শুরু করা ফিনিক্স সেটলমেন্টের ট্রাস্টি ছাড়াও সতীশ ছিলেন গান্ধী ডেভলপমেন্ট ট্রাস্টের পরিচলন সমিতিতেও। আজীবন অসহায় মানুষজনের পাশে দাঁড়িয়েছেন, পীড়িত মহিলাদের জন্য করেছেন কাজ, জাতি, ধর্ম, বর্ণ নির্বিশেষে মানুষের পাশে থেকে ছড়িয়ে দিয়েছেন পিতামহের আদর্শ।

২০০৮ এ তিনি দক্ষিণ আফ্রিকার ফুটবল দল স্যান্টোস এফসির ভিডিও অ্যানালিস্ট হিসাব এসেছিলেন কলকাতায়। তৎকালিন রাজ্যপাল গোপালকৃষ্ণ গান্ধীর সাথে দেখাও করেন সতীশ। সম্পর্কে গোপালকৃষ্ণ গান্ধী ছিলেন তাঁর মামা। মাত্র তিন দিন আগে ১৯ নভেম্বর ছিল তাঁর ৬৬ বছরের জন্মদিন। দীর্ঘ একমাস যাবৎ পালমোনারি ফাইব্রোসিসে আক্রান্ত হয়ে ভর্তি ছিলেন হাসপাতালে। তার ওপর করোনার সংক্রমণ ঘটে। শেষ পর্যন্ত ম্যাসিভ হার্ট অ্যাটাকে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন ২৩ নভেম্বর।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *