পূর্ব ভারতের প্রথম পপ-আপ ক্যাফে ‘উইণ্টার লেন’ খুলল লেক টেরেসে

ওয়েব ডেস্কঃ

পপ-আপ ক্যাফে। হঠাৎ করে গজিয়ে ওঠা খাবারের দোকান? অনেকটা তাই। আবার পুরোটা নয়। নিজের বাড়ির উঠোন, বাগান কিম্বা লনে সম্পূর্ণ ঘরোয়া আবহে তৈরি ক্যাফে হল পপ-আপ ক্যাফে। এই ক্যাফেগুলো সাধারণত বছরের নির্দিষ্ট সময়ের জন্য খোলা হয় আর সেই সিজনের জনপ্রিয় বিভিন্ন খাবার, স্ন্যাকস এবং পানীয় পরিবেশন করা হয়। পপ-আপ ক্যাফের বৈশিষ্ট্য হল প্রতি সাত থেকে পনেরো দিন অন্তর খাবারের মেন্যু পরিবর্তন। ব্রিটেন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, অস্ট্রেলিয়া কিংবা কিউবার মতো দেশে অত্যন্ত জনপ্রিয় হলেও কলকাতায় এতদিন পপ-আপ ফুড জয়েন্ট ছিল না। দক্ষিণ কলকাতার লেক টেরেস রোডের ‘উইন্টার লেন’ (Winter Lane) কলকাতাবাসীর সে আক্ষেপ পূরণ করে দিল । ডিসেম্বর থেকে মার্চ এই তিন মাস চলবে ‘উইন্টার লেন’ তারপর আবার পরের বছরের ডিসেম্বরে খুলবে উইন্টার লেন। প্রতিদিন এই ক্যাফেতে দেওয়া হবে দারুন সব অফার। প্রতি রবিবার হবে “সিক্রেট মেনু”-র দিন। 

হট চকোলেট, শেফার্ডস পাই বা ডিমের কচুরি দিয়ে শীতের সন্ধ্যাটা কাটানোর মজাই আলাদা। তাই চন্দ্রবিন্দু’র অনিন্দ্য চট্টোপাধ্যায়, অভিনেতা ও সংগীতশিল্পী সুজয় প্রসাদ চ্যাটার্জী এবং মানবাধিকারকর্মী রত্নাবলি রায়ের উপস্থিতিতে গত শুক্রবার থেকে লেক টেরেস রোডে ‘উইন্টার লেন’-এর যাত্রা শুরু হল। সমস্ত কোভিড -১৯ বিধিনিষেধ মেনে একসঙ্গে কেবলমাত্র ১৪ জনকে বসার অনুমতি দেওয়া হবে আপাতত।

চিকেন সিক্সটি স্টিকস

প্রথম বছরে ১৮ ডিসেম্বর ২০২০ থেকে ১৮ মার্চ ২০২১ পর্যন্ত প্রতিদিন সন্ধ্যে ৫.৩০টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত খোলা থাকবে উইন্টার লেন। শুধু ভোজনরসিকই নয় উদীয়মান স্ট্যান্ড-আপ কমেডিয়ান বা মিউজিশিয়ানদেরও আগামী দিনে স্বাগত জানানো হবে এই ক্যাফেতে। তাঁরা নিজেদের শিল্প ও প্রতিভা জনসাধারণের কাছে তুলে ধরাবার সুযোগও পাবেন এখানে। 

মেন্যুর সম্ভার

উইন্টার লেন-এর কর্ণধার পারমিতা করাটি জানান, “উইন্টার লেন পূর্ব ভারতের ক্যাফে সংস্কৃতিই বদলে দেবে। কলকাতা বরাবরই এমন একটি শহর যা নতুন সব ভাবনাকে স্বাগত জানিয়েছে। তাই আমার এই পপ আপ ক্যাফেকেও সবাই আকৃষ্ট বলেই আমার বিশ্বাস।”

শেপার্ডস পাই সঙ্গে গার্লিক ব্রেড

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *